আহাদ আদনান

আসুন ভাই, সবাইকে আমন্ত্রণ আমাদের ট্র্যাভেল এজেন্সিতে। ২০৩০-এর ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি আকর্ষণীয় পর্যটন স্পট সুন্দরবন। আপনাদের আমরা নিয়ে যাব ঝকঝকে চকচকে বিভিন্ন স্থানে।

– সুন্দরবন সাফারি পার্ক : আমাদের এই পার্কে আছে ১০টির মতো হরিণ, ২০টি বানর, কয়েকটা কুমির। একটা রয়েল বেঙ্গল টাইগার ছিল অবশ্য, গত মাসে মারা গেছে। গাড়িতে বসে আপনারা সুন্দরবনের ঠিক মাঝ বরাবর হরিণ, বানর দেখতে পারবেন। ভাবতে পারেন?

– আন্তর্জাতিক বানর প্রজনন কেন্দ্র : পার্কের পাশেই এই প্রজনন কেন্দ্র। বানর আমাদের ঐতিহ্য। আমাদের গর্ব। আমরা বাঘ হারিয়েছি, হাতি হারিয়েছি, হরিণ হারানোর পথে। কিন্তু বানর টিকিয়ে রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর।

– রয়েল বেঙ্গল মিউজিয়াম : রামপালে অবস্থিত এই জাদুঘরে দেখতে পাবেন বাঘের কঙ্কাল, হাতির শুঁড়, হরিণের চামড়া। এ ছাড়া সুন্দরী গাছের কিছু প্রত্ন নিদর্শনও আছে। সুন্দরবনের তীরঘেঁষা যে নদীগুলো ছিল, সেগুলোর ওপর তৈলচিত্র আমাদের অন্যতম আকর্ষণ।

(বিশেষ দ্রষ্টব্য : জাদুঘর থেকে বাঘের চামড়া পাচার হওয়া নিয়ে জাতীয় দৈনিকের খবর সম্পূর্ণ ভুয়া, মিথ্যা, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। চামড়া ছিলই না কোনোদিন। আমরা এই সংবাদের তীব্র নিন্দা জানাই।)

-মতি মিয়া হাউজিং : বিশিষ্ট শিল্প গ্রুপ সুন্দরবনের কাছাকাছি নদীগুলো ভরাট করে প্লট বিক্রি করছে। একেকটি প্লট কিনে আপনি হতে পারেন সুন্দরবনের মাঝে গর্বিত জমির মালিক। হয়তো একটু গরম হতে পারে, দূষিত বাতাস থাকতে পারে, ক্ষতিকর রাসায়নিক থাকতে পারে। তাতে কী? কাটা হেরি ক্ষান্ত কেন…?

-সাউথ পয়েন্ট জলবায়ু গবেষণা কেন্দ্র : সারা বিশ্ব থেকে এসিড বৃষ্টি, পাল্টে যাওয়া খাদ্যচক্র, জীবচক্র, নদীদূষণ, পরিবেশ বিপর্যয় নিয়ে গবেষণার জন্য বিজ্ঞানীরা এখানে লাইন লাগান। হাতে-কলমে শেখার এমন সুযোগ কোথায় আছে?

– কৃত্রিম মধু তৈরি কারখানা : সুন্দরবনে এখন গাছ নেই, মৌমাছি নেই, প্রাকৃতিক মধুও নেই। কিন্তু আমাদের দেশি প্রযুক্তিতে আমরা কৃত্রিম মধু তৈরি করা শিখে গেছি। বলিউডের নায়িকারা স্লিম থাকতে এই মধু সেবন করে থাকেন।

– বিএফডিসি (বেঙ্গল ফিল্ম ডেভেলপমেন্ট সার্কাস) : আদি সুন্দরবনের কিছু অবশেষ এখনও যা আছে, সেগুলো ব্যবহার হয় শুটিং স্পট হিসেবে। শিল্পের প্রয়োজনে গাছ কাটা, পোড়ানো, প্রাকৃতিক পরিবেশ বিনষ্ট করা_ সব এখানে জায়েজ।

তাহলে যদি ঘুরে আসতে চান স্বপ্নের (নাকি দুঃস্বপ্নের) সুন্দরবন, যোগাযোগ করুন আমাদের এই প্রসপেক্টাসে দেওয়া ফোন নম্বরে।

আপনাদের ভ্রমণ আনন্দময় হোক।

সূত্রঃ দৈনিক সমকাল